আপনি আসের্নিক মুক্ত পানি পান করছেন তো? Leave a comment

বতর্মানে মাত্রাতিরিক্ত আসের্নিক যুক্ত পানি পান করা মানুষের সংখ্যা প্রায় ৩ কোটি ২0 লাখ। * সূত্র প্রথম আলো ২১.০৪.২০১৭

আর্সেনিক দূষণে যে সব শারিরীক সমস্যা দেখা দেয় তাই আর্সেনিকোসিস। আর্সেনিক একটা শক্তিশালী বিষ, এর কোনো রং ও গন্ধ নেই , ইহা একটি ধাতব পদার্থ মাত্র ১০০ মিলিগ্রাম আর্সেনিক একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের মৃত্যু ঘটাতে পারে।

আর্সেনিক কি?
আর্সেনিক (Arsenic) ধূসর আভাযুক্ত সাদা রং বিশিষ্ট ভঙ্গুর প্রকৃতির একটি অর্ধধাতু বা উপধাতু। এটির রাসায়নিক সংকেত As, আণবিক সংখ্যা ৩৩, আণবিক ভর ৭৪.৯২ । ১২৫০ সালে আলবার্ট দি গ্রেট এটি আবিষ্কার করেন। আর্সেনিক প্রধানত দুই ধরনের, যথা জৈবিক ও অজৈবিক যার মধ্যে অজৈব আর্সেনিকের বিষাক্ততা সবচেয়ে বেশি।

আর্সেনিকের কত টুকু মাত্রা মানব দেহের জন্য ক্ষতি কারক ? প্রতি লিটার পানিতে ০.০১ মিলিগ্রামের বেশি আর্সেনিক থাকলে তা মানুষের শরীরের জন্য ক্ষতিকর । বাংলাদেশে আর্সেনিক এর গ্রহন যোগ্য মাত্রা ০.০৫ মিলিগ্রাম/ লিটার (http://www.who.int/mediacentre/factsheets/fs372/en/)

আর্সেনিক বিষক্রিয়া সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে- তাৎক্ষণিক ও দীর্ঘমেয়াদি আর্সেনিকোসিস। বাংলাদেশের আর্সেনিক ৯৭% আক্রমণ দীর্ঘমেয়াদিই হয়ে থাকে বিধায় সবাই কয়েক বছর কিছুই বুঝতে পারেন না ।
আর্সেনিক, কীটনাশক এবং মাটি থেকে অনেক ধাতব পদার্থ যেমন শিশা, পারদ অতিমাত্রায় আয়রন পদার্থ পানির মাধ্যমে আমাদের শরীরে প্রবেশ করে এবং আস্তে আস্তে শরীরকে ক্ষয় করে।

Kent RO Water Purifier আর্সেনিক মুক্ত বিশুদ্ধ ও স্বাস্থ্যসম্মত পানি সরবরাহ করে। তাই আর্সেনিকোসিস থেকে সুরক্ষা পেতে ব্যবহার করুন “Kent Water Purifier.” বিস্তারিত: https://goo.gl/ftAJ4E

kent

Leave a Reply